প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর মারা গেছেন

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী এন্ড্রু কিশোর মারা গেছেন। সোমবার সন্ধ্যা সাতটায় তাঁর নিজের শহর রাজশাহীতে একটি ক্লিনিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় তার বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাড়িতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সোমবার (৬ জুলাই) ৬টা ৫৯ মিনিটে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন এই কিংবদন্তি।

বিজ্ঞাপন

দীর্ঘদিন ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে আসছিলেন আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই কন্ঠশিল্পী। এন্ড্রু কিশোর গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর শরীরে নানা ধরনের জটিলতা নিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে দেশ ছেড়েছিলেন। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ১৮ সেপ্টেম্বর নন-হজকিন লিম্ফোমা নামক ব্লাড ক্যানসার ধরা পড়ে তাঁর শরীরে।

সিঙ্গাপুরে টানা ৯ মাস চিকিৎসা নিয়ে একটি বিশেষ ফ্লাইটে গত ১১ জুন তিনি দেশে ফেরেন। তারপর থেকে তিনি রাজশাহীতে বোন শিখা বিশ্বাসের সঙ্গে বসবাস করছিলেন। শারীরিক অস্থার অবনতি হওয়ায় তিনি বোনের পরিচালিত ক্লিনিকে ভর্তি ছিলেন।

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসারত অবস্থায় তিনি বলেছিলেন, ‘আমি আমার দেশে গিয়ে মরতে চাই, এখানে নয়।’ সে ইচ্ছে তাঁর পূরণ হলো। তাঁর মৃত্যুতে সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এন্ড্রু কিশোর রাজশাহীতে ১৯৫৫ সালের ৪ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ও লিপিকা এন্ড্রু দম্পতির দুই সন্তান। মেয়ে মিনিম এন্ড্রু সংজ্ঞা এবং ছেলে জে এন্ড্রু সপ্তক দুজনেই পড়াশুনা করছেন অস্ট্রেলিয়ায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিল্পীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। শোক বার্তায় তিনি বলেন, এন্ড্রু কিশোর তার গানের মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

নগরীর মহিষবাথান এলাকায় এই করোনা পরিস্থিতিতেও তাকে দেখতে ভক্তদের ভিড়। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শিল্পীর ছেলে জে এন্ড্রু সপ্তক ও এক মেয়ে মিনিম এন্ড্রু সংজ্ঞা অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। টিকিট মিললেই চলে আসবেন। তারা ফিরলেই এন্ড্রুর শেষকৃত্য হবে। শিল্পীকে সমাধিস্থ করা হবে নগরীর শ্রীরামপুর এলাকায়।

বাংলা গানের এই কণ্ঠশিল্পী ‘প্লেব্যাক সম্রাট’ নামে পরিচিত। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রজগতের কালজয়ী ও আধুনিক অনেক গান তাঁর কণ্ঠে সমৃদ্ধ হয়েছে। চলচ্চিত্রের বাইরে তিনি ‘ইত্যাদি’তে গান করেন ‘পদ্মপাতার পানি নয়’, এছাড়াও তিনি পরবর্তীকালে বেশ কয়েকবার ‘ইত্যাদি’তে এসেছেন।

এন্ড্রু কিশোরের সবচেয়ে জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে ‘আমার বুকের মধ্যিখানে’, ‘তুমি যেখানে/ আমি সেখানে’, ‘জীবনের গল্প/ আছে বাকি অল্প’, ‘হায় রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘বেদের মেয়ে জোসনা আমায় কথা দিয়েছে’, ‘তুমি আমার জীবন/ আমি তোমার জীবন’, ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘ভালোবেসে গেলাম শুধু ভালোবাসা পেলাম না’, ‘তুমি আমার কত চেনা’, ‘চাঁদের সাথে আমি দেব না তোমার তুলনা’, ‘ভালো আছি ভালো থেকো’, ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’, ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’, ‘তোমায় দেখলে মনে হয়’,‘এইখানে দুইজনে নির্জনে’সহ অনেক গান।

বিজ্ঞাপন

***পীরগঞ্জ টোয়েন্টিফোরে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।***

Content Protection by DMCA.com