ধর্ম অবমাননার জেরে রংপুরে লঙ্কাকাণ্ড, ২৫ ঘরে আগুন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসে ধর্ম অবমাননার জেরে রংপুরে গঙ্গাচড়া উপজেলার হরকলি ঠাকুরপাড়া গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্তত ২৫টি ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।

পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, গঙ্গাচড়া উপজেলার খলেয়া ইউনিয়নের ঠাকুরপাড়া এলাকার মৃত খগেন রায়ের ছেলে টিটু রায় নারায়ণগঞ্জে ফতুল্লার একটি গার্মেন্ট কারখানায় কাজ করেন। থাকেন সেখানেই। গত ৫ নভেম্বর ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে ‘ধর্মীয় অবমাননাকর’ স্ট্যাটাস দেন বলে অভিযোগ করা হয়।

ওইদিনেই এ ঘটনায় একই ইউনিয়নের লালচান্দপুর গ্রামের বাসিন্দা আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে টিটু রায়কে আসামি করে গঙ্গাচড়া থানায় মামলা করেন। এ ব্যাপারকে কেন্দ্র করে গত কয়েক দিন থেকে ওই গ্রাম ও আশপাশ এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

আরও পড়তে পারেন: রংপুর সিটি নির্বাচনে একমাত্র নারী মেয়র প্রার্থী সুইটি

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) জুমার নামাজের পর আশেপাশের ৬-৭টি গ্রামের প্রায় কয়েক হাজার বিক্ষুব্ধ মুসলিম সমবেত হয়ে বিক্ষোভ করে। এর এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধরা টিটু রায়ের হরকলি ঠাকুরপাড়ায় অবস্থিত বাড়িতে আগুন দেয়। এতে তাঁদের তিনটি ঘর ভস্মীভূত হয়ে যায়। এরপর বিক্ষুব্ধকারীরা ওই এলাকার আরও কয়েকটি বাড়ির ১৫টি ঘরে আগুন দেয়।

ঘটনাস্থল হরকলি ঠাকুরপাড়া রংপুরের সদর, গঙ্গাচড়া ও তারাগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় ঘটনা জানার পর পর তিন থানা থেকে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। উত্তেজিত বিক্ষুব্ধকারীদের শান্ত ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শটগানের গুলি ও টিয়ার গ্যাসের শেল ছোড়ে। এতে সাত পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়েছে এবং হামিদুল ইসলাম নামে একজন নিহত হয়েছে।

—বাংলাদেশ সময়: বিকাল ০৪:৫৭, ১১ নভেম্বর, ২০১৭

***পীরগঞ্জ টোয়েন্টিফোরে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।***

আরও পড়ুন...