ডাউনলোড করুন মুক্তিযুদ্ধের গেইম ‌হিরোজ অব ৭১

পাঁচ কমান্ডোর প্রত্যেকের মুখে কালো কালি মাখা। দু’জনের হাতে লাইট মেশিনগান, একজনের হাতে একটা হেভি মেশিনগান এবং বাকি দু’জনের কাছে স্ট্যান্ডার্ড ইস্যু রাইফেল। প্রত্যেকের বেল্টেই তিনটা করে গ্রেনেড। যুদ্ধের সময় গ্রেনেড দামি বলে সাবধানে খরচ করতে হয়। নেহাত দায়ে না পড়লে ব্যবহারের অনুমতি নেই। কবির, বদি, সজল, তাপস ও শামসু কমান্ডো বাহিনীর পাঁচজনের নাম হলেও মিশনে এক অন্যকে বিশেষ কল সাইন ধরে ডেকে থাকেন। মধুমতী নদীর পাশে শনির চর গ্রামে একটা স্কুল পাক সেনারা ক্যাম্প করেছে। এটি দখল নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধাদের এ দল। এটা গৌরবময় ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তৈরি হিরোজ অব ৭১ গেইমের পটভূমি। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্য গেইমটি তৈরি করেছে দেশীয় অ্যাপ্লিকেশন গেইম নিমার্তা প্রতিষ্ঠান পোর্টব্লিস।

গেইমটিতে ১৬টি ডিফিকাল্ট লেভেল আছে। গেইমাররা তিনটা ক্যারাক্টার নিয়ে খেলতে পারবেন এবং তাকে এ তিনটি ক্যারাক্টারের অস্ত্র ও দক্ষতা ব্যবহার করে ক্যাম্প রক্ষা করতে হবে।

2226-02

ক্রমাগতভাবে পাকিস্তানি সেনা আসতে থাকবে। গেমারকে এদেরকে মারতে হবে। প্রথম লেভেলে অল্পকিছু সৈন্য আসবে, পরে সেনার সংখ্যা, অস্ত্রের ড্যামেজ, প্রকারভেদ বাড়তে থাকবে। ১৬টি লেভেল পার করতে পারলেই গেমার ক্যাম্পকে রক্ষা করতে পারবেন।

দুই বছর আগে গেইমটি তৈরির আইডিয়া এসেছিল পোর্টব্লিসের প্রধান নিবার্হী মাশা মুস্তাকিম ও তাঁর দলের  মাথায়। শুরুতে আইডিয়া ছিল বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ অথবা মোস্তফা কামালের জীবনের শেষ যুদ্ধকে একটা ইনফিনিট শুটার টাইপ গেমে তুলে আনবেন। তবে সেসময় প্রতিষ্ঠানে ভালো থ্রিডি আর্টিস্ট এবং যথেষ্ট প্রোগ্রামার না থাকার কারণে তখন এটি হয়ে ওঠেনি।

‘পোর্টব্লিস গেইমস’-এর কারিগরি উন্নয়ন বিভাগের প্রধান মাশা মুস্তাকিম জানান, “মূলত ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করা টাকা থেকেই গেইমটির বড় খরচগুলো করা হয়েছে। পাশাপাশি বুয়েটের বড় ভাইরা আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে পাশে দাড়িয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধের মত বিশাল এবং স্পর্শকাতর একটা প্রেক্ষাপটে গেইমটিকে গ্রহণযোগ্য করে তোলা খুব কঠিন কাজ। তাই এ মূহুর্তে ছোট একটি কাহিনীকে কেন্দ্র করে গেইমটা তৈরি করেছি। গেমারদের চাহিদা এবং সাড়া পেলে আগামী বছরের মার্চ মাসে এর পরের সংস্করণ বাজারে আনবো বলে আশা করছি।”

পুরো গেমটির গল্প লিখেছেন ওমর রশিদ চৌধুরী। এছাড়া ডেভেলপমেন্ট এবং অন্যান্য কাজে ছিলেন রকিবুল আলম, আরিফুর রহমান, অপ্রতিম কুমার চক্রবর্তী, অভিক চৌধুরী, আবদুল জাওয়াদ, পাপন জিৎ দে, রেহাব উদ্দিন, তপেশ চক্রবর্তী ও প্রিয়ম মজুমদার।

হিরোজ অব ৭১ গেইমটি আজ থেকে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে সবার জন্য। ১ জিবি র‌্যাম আছে এমন যে কোন আন্ড্রয়েড ডিভাইসে খেলা যাবে গেইমটি। গেইমটি আন্ড্রয়েড ডিভাইসে খেলতে ডাউনলোড করুন https://goo.gl/qeKuve লিঙ্ক থেকে।

উইন্ডোজ ফোন ও অ্যাপলের আইওএস অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীদের জন্য আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

***পীরগঞ্জ টোয়েন্টিফোরে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।***

আরও পড়ুন...