পীরগঞ্জের চতরার নারিকেল গাছ রক্ষায় স্পিকারের হস্তক্ষেপ কামনা

রংপুরের পীরগঞ্জে মরহুম সংসদ সদস্য অব্দুল জলিল প্রধানের স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে অন্তরায় সঠিক ব্যবস্থাপনা। তার স্মৃতি ও রাজস্ব আয় বাড়ানোর স্বার্থে পীরগঞ্জের সংসদ সদস্য মহান জাতীয় সংসদের অভিভাবক ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সু-দৃষ্টি কামনা করছেন এলাকার সুশীল সমাজ ও তার পরিবার। ১৯৭৭ সালে মরহুম আব্দুল জলিল প্রধান যখন চতরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন সেই সময় ইউনিয়নের প্রতিটি রাস্তায় আশি হাজার নারিকেল গাছ এর চারা রোপন করে দেশজুড়ে আলোচনায় এসেছিলেন। ১৯৮৫ সালে ২০শে ফেব্রুয়ারী তৎকালীন রাষ্ট্রপ্রধান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ গাছগুলো দেখার জন্য চতরায় এসেছিলেন এবং জলিল প্রধানের ভুয়সী প্রশসংসা করেছিলেন।

আব্দুল জলিল জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন নিয়ে পরপর দু-মেয়াদে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। গাছগুলো যখন রোপন করা হয় তখন ইউনিয়নের কিছু বিপদগামী যুবককে পাহারায় নিযুক্ত করে তাদেরকে সু-পথে পুনর্বাসন করার চেষ্টা করেছিলেন। গাছগুলো থেকে সরকারি রাজস্ব আসলেও সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে অধিকাংশ গাছ বিলুপ্তির পথে। কিন্তু বাবার স্মৃতি রক্ষার্থে হাল ছাড়েনি তাঁর কন্যা ফ্রান্স প্রবাসী ‘জুঁই’।

কয়েকহাজার মাইল দূর থেকে এলাকার কিছু উদ্যমী যুবকদের সহায়তায় পীরগঞ্জ থেকে চতরা, সোনাতলা থেকে চতরা রাস্তায় নতুন করে চার শত নারিকেল চারা পুনরায় রোপন করেছেন। কিন্তু গাছগুলো রোপনের পর পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বেহাল অবস্থায় পড়ে আছ। এ বিষয়ে ইউনিয়নের একাধিক ব্যক্তির সাথে কথা বললে তারা জানান রোপন করা গাছগুলো থেকে রাজস্ব আসলেও সঠিক তদারকির অভাবে অনেক গাছ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ মিজানুর রহমান রাজু বলেন, ‘আমি যখন চেয়ারম্যান ছিলাম প্রতি বছর গাছগুলো থেকে প্রায় লক্ষাধিক টাকা আয় হত যা ইউনিয়ন পরিশোধের তহবিলে জমা হয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম করেছিলাম।’ একই কথা বললেন সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম জলিজ প্রধানের সহধর্মীনি আলেয়া জলিল।

বর্তমান চেয়ারম্যান এনামূল হক শাহিন বলেন, ‘আমি গত তিন বছর কিছু কিছু রাস্তায় বন্দোবস্ত দিয়ে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা উন্নয়ন তহবিলে জমা করতে সক্ষম হয়েছি। কিন্তু স্থানীয় সুধীজনেরা বলছেন যে গাছগুলো থেকে সরকার রাজস্ব পায় সেই গাছগুলোর সঠিক তদারকি করলে আরো বেশি টাকা জমা হত এবং এলাকার উন্নয়ন বেশি হত। এর পরেও সংসদ সদস্যের সুযোগ্য কন্যা ‘জুঁই’ প্রবাস থেকে ইকলিনপুর গ্রামের জাকিউল ইসলাম মোতাল্লেব হোসেন সোহেল নাজির আহম্মেদ লিয়ন, শাহিন মিয়া সহ অর্ধ শতাধিক উদ্যমী যুবক নতুন করে গাছগুলো রোপন করা সহ সাধ্য অনুযায়ী পরিচর্যা করে যাচ্ছেন। কিন্তু এভাবে আর কতদিন। এলাকাবাসী ও সংসদ সদস্য পরিবার নারিকেল গাছগুলো সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ করতে পীরগঞ্জ এর সংসদ সদস্য ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ‘

***পীরগঞ্জ টোয়েন্টিফোরে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।***

Content Protection by DMCA.com