- বিজ্ঞাপন -
20.2 C
Pirganj
হোমপ্রচ্ছদকী হয়েছিল ফেইসবুকে? - রাগিব হাসান

কী হয়েছিল ফেইসবুকে? – রাগিব হাসান

- বিজ্ঞাপন -

অক্টোবর ৪ ২০২১ আমেরিকার কেন্দ্রীয় সময় সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৫টা মানে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত ফেইসবুক এবং এর সাথের সম্পর্কিত সার্ভিস ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার এরা সবাই ডাউন হয়ে যায়। কেউই ফোন বা কম্পিউটার থেকে এসব সার্ভিসে ঢুকতে পারেননি এই সময়ে। থেমে যায় ফেইসবুকের বিলিয়ন মানুষের কথোপকথন কিংবা ফেইসবুক ভিত্তিক ই-কমার্সের চাকা।

কিন্তু কেন?
এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুসারে ফেইসবুকের মূল সার্ভারের তথ্য, ছবি, বা অন্য কিছুর কারণে এই ঘটনা ঘটেনি। ঘটনাটি ঘটেছে ফেইসবুকের সার্ভারগুলো ইন্টারনেট থেকে হারিয়ে যাওয়ার কারণে। সবাইই এই সময়ে ফেইসবুকে ঢোকার জন্য ফেইসবুকের সার্ভারের খোঁজ করেছে। কিন্তু মেলায় হারিয়ে যাওয়া ভাইটির মতোই ফেইসবুকের খোঁজ কেউ দিতে পারেনি।

ব্যাপারটা একটু ব্যাখ্যা করি।
ইন্টারনেট বলতে আমরা যা বুঝি তা হলো অনেকগুলো ছোট ছোট নেটওয়ার্কের সমষ্টি যারা একে অন্যার সাথে যুক্ত আছে রাউটারের মাধ্যমে। ডিএনএস বা ডোমেইন নেইম সার্ভিস এর মাধ্যমে কোন সাইটের নাম থেকে সেই সাইটের আইপি এড্রেস বের করে আপনার অ্যাপ বা ব্রাউজার। তার পর সেই সার্ভার থেকে ডেটা আনে (ফেইসবুক সাইট বা অ্যাপের কন্টেন্ট)।

কিন্তু সেটা করতে হলে তো জানতে হবে ঐ অ্যাড্রেস পর্যন্ত ডেটা দেয়ার রিকোয়েস্ট কীভাবে পাঠানো যায়? এই যে ঠিকানা খুঁজে খুঁজে ঐ পর্যন্ত যাওয়া, সেটার কাজটা করা হয় বর্ডার গেইটওয়ে প্রটোকল বা বিজিপি এর মাধ্যমে। রাউটারেরা সারাক্ষণ তথ্য আদান প্রদান করে। যাতে করে কোন সার্ভারে কীভাবে কোন পথে যাওয়া যায় সেটার হিসাব থাকে।

ব্যাপারটা অনেকটা এরকম, ধরেন আপনি চানখাঁরপুল থেকে হাতিরপুলে যাবেন, কিন্তু ঢাকায় নতুন এসেছেন। কীভাবে যাবেন? মোড়ে মোড়ে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন কাউকে, ভাই, হাতিরপুলে যামু ক্যামনে? সে হয়ত বললো, এই রাস্তায় চলে যান চার রাস্তার মাথা পর্যন্ত। তার পর ঐখানে কাউকে জিগান।

ইন্টারনেটেও ঘটনা তাই। আপনি চাইলেন ফেইসবুকের সার্ভারে যেতে। ঠিকানা অমুক। প্রথম রাউটার বললো, ঠিকাছে, আমি যদ্দুর জানি এই সার্ভারে যেতে হলে দ্বিতীয় তমুক রাউটারে যেতে হবে আগে। এইভাবে এক রাউটার থেকে আরেক রাউটারে আপনার রিকোয়েস্ট ঘুরে ঘুরে চলে যায় ফেইসবুকে।

কিন্তু আজকে কী হলো? প্রথমে ফেইসবুকের ডোমেইন নেইম সার্ভিস গায়েব হয়ে গেল, ফলে ফেইসবুক ডট কম কোন ঠিকানায় সেটা নতুন করে কেউ জানতে পারছিল না। আর তার একটু পরেই ফেইসবুকের নিজস্ব নেটওয়ার্ক থেকেই সবাইকে বলে দেয়া হল, আই ভাইসব, আমরা না আর নাই। আমরা গায়েব। আমাদের ঠিকানা যা আগে জানতেন ভুইল্যা যান সবাই জলদি।

বিজিপি প্রটোকলের এই বার্তা দ্রুতই ছড়িয়ে গেল সর্বত্র। ফলে একটু পরেই ঘটনা হল এমন, আপনি বললেন ফেইসবুক যামু। কিন্তু আপনার আইএসপির রাউটার বলে, ঐটা কে? নাম কি বাড়ি কই, আমি কিছুই জানি না!

ব্যাপারটা অনেকটা এরকম, একটা বাড়ি ঠিকই আছে, কিন্তু সব ম্যাপ থেকে সেই বাড়ির ঠিকানা মুছে গেছে, ফলে কেউ আর পৌছাতে পারছেনা সেখানে।

কেন এমন হয়েছে সেটাই বড় প্রশ্ন। নেটওয়ার্কের কনফিগারেশনের ভুল নাকি স্যাবোটাজ, সেটা জানা যাবে আর কয়েকদিনে, ফরেন্সিক ইনভেস্টিগেশন করার পরে। কেবল আমেরিকাতেই নেটব্লক্সের হিসাবে অন্তত ২৩২ মিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে, আর সারা বিশ্বে সেটা হয়তো কয়েক বিলিয়ন ডলার ছাড়াবে। তবে আমার ধারণা ক্ষতির হিসাব আরো বেশিই হবে।

ফেইসবুক ডাউন থাকার কারণে আমেরিকাতেই নেটব্লক্সের হিসাবে অন্তত ২৩২ মিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে

তবে এই ঘটনায় আরেকটা ব্যাপার প্রমাণ হয়েছে, সেটা বুঝছেন তো? ফেইসবুক ছাড়াও আমরা চলতে পারি। অন্তত ৬ ঘণ্টা চলেছি এবং পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যায়নি। স্বস্তির ব্যাপার সেটাই, তাই না?

***পীরগঞ্জ টোয়েন্টিফোরে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।***

- বিজ্ঞাপন -
- বিজ্ঞাপন -

সর্বশেষ

আরো খবর

- বিজ্ঞাপন -